Home / মিডিয়া নিউজ / প্রেমিকা হারিয়ে তিনিই ‘মধু হই হই’ প্রথম গেয়েছিলেন

প্রেমিকা হারিয়ে তিনিই ‘মধু হই হই’ প্রথম গেয়েছিলেন

এই শিল্পীকে হয়তো কেউ চেনেন না। নিজে জনপ্রিয় না হলেও তার গান তার থেকে বেশি জনপ্রিয়।

তবে তিনি এখনও জনসম্মুখের আড়ালেই আছেন। যার কথা বলছি তিনি হচ্ছেন ‘মধু হই হই’ গানের মূল শিল্পী। তার নাম আব্দুর রশীদ মাস্টার।

সম্প্রতি কক্সবাজারের আঞ্চলিক অনলাইন টেলিভিশনে এক সাক্ষাৎকারে প্রকাশ্যে

আসেন এই শিল্পী। সাক্ষাৎকারে গানটির পেছনের গল্প এবং নিজের ক্ষোভের কথাও বলেন তিনি।

প্রেমিকা হারানোর কষ্ট বুকে নিয়ে বিরহের গান তিনি। তার প্রেমিকার নাম মীনারা। সেন্টমার্টিন দ্বীপের সমুদ্রের তীরে নিজের সুর ও কথাতেই গান গাইতেন। তার গানে মুগ্ধ হয়ে এক বিদেশি পর্যটক তাকে ম্যান্ডোলিন উপহার করেন। আগে গাইতেন বাদ্যযন্ত্র ছাড়া, পরে সেই যন্ত্র পাওয়ার পর ২০০৪ সাল থেকে প্রকাশ্যে গান গাইতে শুরু করেন আব্দুর রশীদ মাস্টার।

এখনও গান তিনি। তবে নিজের জীবন চালাবার জন্য বর্ষার সিজনে মাছ ধরেন। আর শীতকালে সেইন্ট মার্টিন দ্বীপে আসা পর্যটকদের গান শোনান। একটা পর্যায়ে প্রেমিকার উদ্দেশ্যে তার গাওয়া গান ছড়িয়ে পড়ে কক্সবাজার জেলা থেকে পুরো দেশে। তার গানের মূল কথা পরিবর্তন করে গেয়েছেন অনেকেই। তাদের জীবনের মান পরিবর্তন হলেও শিল্পী আব্দুর রশীদ মাস্টার আছেন আগের মতোই। এ নিয়ে কিছুটা আক্ষেপ আছে তার, তব মেনে নিয়েছেন।

এ ব্যাপারে রশীদ মাস্টার বলেন, ‘পুরা গানটা কেউ গাইতে ফারে না। মূল গানটা কেউ বলে না। গানে একটা কথা আছে ‘কোন দুষহান ফাই ভালোবাসার মূল ন’দিলা’-এখানে সবাই বলে ‘কোন কারণে দাম ন’ দিলা’। গানের শেষে আমার নাম আছে সেটাও ব্যবহার করা হয় না।’

এছাড়া তিনি জানান, ‘গানটির সৃষ্টি ২০০০ সালের আগে। আমার তো ওইভাবে হিসাব মনে নাই। ২০০০ সালের ফরে ২০০৩ এর দিকে সন্দীপন দাস আমার কাছ থেকে গানটা লিখে নিয়ে যায়। আমার কাছ থেকে অনেকেই এরকম করে, গান লিখে, ভিডিও করে নিয়ে যায়। সবাই আমার গানটা গায়, গানের মধ্যে আমার নামটাও বলে না। সবাই দাবি করতেছে, আমার গান, আমার গান, আমি লিখছি। আমি কী বলব, কী করব? আমি তো একটা গরিব মানুষ, আছি আমার মতো।’

কিছুটা ক্ষোভ প্রকাশ করে এই শিল্পী বলেন, ‘কার কাছে চাবো, আমি কার কাছে চাবো, আমার মতো আমি আছি। কেউ যদি আমাকে সাহায্য করলে পারতো, কেউ তো আমাকে তেমন করে না। চারিদিকে থৈ থৈ পানি, মাঝখানে একটা দ্বীপ, অল্প মানুষজন। এরকম একটা জায়গায় আমরা থাকি। মাছ ধরি, মাছ মারি। সিজন যখন আসে তখন টুরিস্টরা আমাকে খোঁজে। ওরা আমাকে ডাকলে আমি যাই, আমার গান শুনাই। কার কাছে চাবো, কেউ আমাকে মূল্য দেয় না। আমি গরিব মানুষ, বউ বাচ্চা নিয়ে থাকি। আমিতো আরও গান লিখছি, নিজে গাই, নিজে বাই (বাজাই)। আমি একটা ম্যান্ডোলিন বাই। কেউ ডাকলে গাই, না ডাকলে না গাই। দামাদামি করি না। হাজার হাজার পর্যটক আমার গান শোনে এটাই।’

‘মধু হই হই’ গানের ইতিহাস নিয়ে রশিদ মাস্টার বলেন, ‘এটা আমার প্রেমের একটা ইতিহাস। আমিতো প্রেম করছি, কিন্তু তাকে বিয়া-শাদি করতে পারি নাই। ওরে পাই নাই। ও আমারে যেরকম বলছিল, ওই রকম করে নাই। ওই উপলক্ষে গানটা গাইছি আরকি।’

Check Also

সংবাদ পাঠিকাকে বিয়ে করতে যাচ্ছেন তাহসান

অভিনেতা, গায়ক তাহসান খান ও অভিনেত্রী মিথিলা ভালোবেসে সুখের সংসার সাজিয়েছিলেন। সেই সংসারের ইতি টানেন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *