Home / মিডিয়া নিউজ / কমেডি কিং মোশাররফ করিমের অজানা গল্প!!!

কমেডি কিং মোশাররফ করিমের অজানা গল্প!!!

বাংলাদেশের নাট্য জগতের এক উজ্জল নক্ষত্রের নাম মোশাররফ করিম। তার হাস্যরসযুক্ত অভিনয় দ্বারা অর্জন

করেছেন কোটি দর্শকের ভালোবাসা। মোশাররফ করিমেরজন্ম ২২ আগষ্ট ১৯৭২ সাল পুরো নাম-মোশাররফ করিম

এবং ডাকনাম-শামীম ।জন্মস্থান-ঢাকা ।উচ্চতা-পাঁচ ফুট তিন ইন্চি। গ্রাম-গৌরনদী উপজেলা আরিয়াল খাঁ পাড়ার

পিঙ্গলকাঠি গ্রাম।ছোটবেলায় ভীষন ডানপিটে স্বভাবের ছিলেন এবং অনেকবার স্কুল ফাঁকি দেয়ার রেকর্ডও তার ঝুলিতে আছে।তিনি ক্লাস থ্রী এর আগে স্কুলে লেখাপড়া করেননি। কারন তিনি ছোটবেলায় কিছুদিন পরপরই হারিয়ে যেতেন। পিতার নাম আব্দুল করিম। যিনি স্বপ্ন দেখতেন দেশের একজন নামকরা অভিনেতা হওয়ার। তবে নানান প্রতিকূলতার কারনে তার সেই স্বপ্ন বাস্তবে রুপ নেয়নি।মোশাররফ করিম প্রথম থিয়েটারে যোগ দেন ১৯৮৬ সালে।অভিনয়ের প্রতি মাত্রাতিরিক্ত ভালোবাসা থেকেই তার এ যোগদান।

পেশায় অভিনেতা ও‌ মডেল । অভিনয় জীবন শুরু ১৯৯৯ সাল ।তার অভিনীত প্রথম সিনেমা-জয়যাত্রা ২০০৪।বিয়ে করেন ২০০৪ সালে। স্ত্রীর নাম রোবেনা রেজা জুই।মজার বিষয় হলো তিনি মোশাররফ করিমের ছাত্রী ছিলেন।তিনি যখন প্রেমের প্রস্তাব দেন সেটি জুই প্রত্যাখান করে।পরবর্তীতে তাকেই জীবনসঙ্গী হিসেবে বেছে নেন।পেশায় তিনিও ‌একজন নাট্যশিল্পী।মোশাররফ করিম এক ছেলে যার নাম রোবেনা রায়ান করিম বিশেষ গুন-অন্যদের গলার স্বর,অঙ্গভঙ্গি হুবুহু নকল করতে পারেন। এবং এই গুন তিনি খুব ছোটবেলা থেকেই আয়ত্ত করেছেন।তার আরও একটি গুন হলো তিনি বাংলাদেশের প্রায় সব জেলার আন্ঞলিক ভাষায় কথা বলতে পারেন।

প্রথম নাটক-ক্যারাম যার মাধ্যমে তার ক্যারিয়ার পাল্টে যায় নাটকে তার বিপরীতে অভিনয় করেন অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা। পরবর্তীতে তিনি রূপকথার গল্প (২০০৬), দারুচিনি দ্বীপ (২০০৭), থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার (২০০৯), প্রজাপতি (২০১১), টেলিভিশন (২০১৩), জালালের গল্প (২০১৫), এবং অজ্ঞাতনামা (২০১৬) চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। অভিনীত নাটকের সংখ্যা-400 টিরও বেশি অভিনীত ধারাবাহিকের সংখ্যা-50 টির বেশি ।তার কাজের একাংশ-জিম্মি, দুই রুস্তম, অন্তনগর, ফ্লেক্সিলোড, কিংকর্তব্যবিমূঢ়, আউট অফ নেটওয়ার্ক, সাদা গোলাপ, ৪২০, জুয়া, সুখের অসুখ, সিরিয়াস কথার পরের কথা, সন্ধান চাই, ঠুয়া, লস, সিটি লাইফ, বিহাইন্ড দ্যা সিন, তালা, শূন্য পিক পকেট, ফাউল, জাঁতাকল,দর্প হরন একদা এক বাঘের গলায় হাড় ফুটিয়া ছিল,ইতি এবং ফোর্থ সাবজেক্ট,হাতা বাবা রিটার্ন, কোরিয়ান ব্যাংকক,কালো ভ্রমর, ল্যাইছ ফিতা,লস প্রজেক্ট,লস্ট অ্যান্ড ফাউন্ড,মেঘ বন্ধু, শেষ ভালবাসা শুরু,নৈশভোজ, পিক পকেট,পয়েন্ট থ্রী পল্টিবাজ,

রঙ্গিন ফানুস,সংখ্যাতত্ব,শূন্যস্থান পূরন, শূন্যতায় বোনা ঘর,ঠগবাজ,ঠুয়া, তৃতীয় পক্ষ,ভায়োলিন,ভূগোল, ভ্রমর,বারাবারি,ঢেউ পোলাও ডট কম,চা অথবা কফি, বন্ধু আমরা তিনজন,মানিব্যাগ,একটি ঘটনা অথবা দুর্ঘটনা,ভেজাল,শর্টকাট, জন্মদিন,চাইছি তোমার বন্ধুত্ব,যমজ,প্রিয় পারভিন,গরিবের বন্ধু, কবি বলেছেন,আন্তনগর, মোবাইল কোর্ট,ভুল এবং অনুতপ্ত,দেবদাস হতে চাই, জিম্মি,লুঙ্গী, দেওয়াল আলমারি,ঢাকা মেট্রো ভ,ফাউল,কেছিকল রং,চৌধুরি সাহেবের ফ্রী অফার, সপ্নে দেখা রাজকন্যা,তালা, টক শো,ডাকাত,বউ কথা কও, নাগরিক,উচ্চ মাধ্যমিক সমাধান, ডাক্তার জামাই,মানি ইজ নো প্রবলেম,বৃত্ত,জুতা বাবা, গন্তব্বের দিকে,পসারি,না ভোট, ধূমপান সাস্থের জন্য ক্ষতিকর, মুদ্রাদোষ,পারি,ছেলে ধরার কল, সত্য বালক,শোয়া বাবা, সিকান্দার বক্স এখন অনেক বড় সিকান্দার বক্স এখন বিরাট মডেল,সিকান্দার বক্স এখন কক্সবাজারে, সিকান্দার বক্স এখন পাগল প্রায়, সিকান্দার বক্স এর হাওয়াই গাড়ী, সিকান্দার বক্স এখন বান্দরবনে, সিকান্দার বক্স এখন রাঙ্গামাটি, সিকান্দার বক্স এখন নিজ গ্রামে, সোনার ডিম,প্রথম সূর্যের গল্প হারানো সুর,সিমিলার টু কঠিন প্রেম,লা লাটিম, ভালবাসার গল্প ফুল, ভালোবাসার উল্টোপিঠ, ভালবাসার এবেলা ওবেলা, চন্দ্র বিন্দু,গরু চোর,চোর ও নভেলিস্ট, শুধু একটু বিরহের জন্য,একটি নোট,দুরত্ব বজায় রাখুন না,মানুষ,প্রথম প্রেম,পাইরেসি, গুগল ডট কম, কথা দিলেম তো ইত্যাদি তার কাজ গুলোর মধ্যে অন্যতম।

২০১৬ সালে তিনি তৌকির আহমেদ পরিচালিত চতুর্থ চলচ্চিত্র অজ্ঞাতনামায় একজন পুলিশ কর্মকর্তার ভূমিকায় অভিনয় করেন।পরের বছর তিনি তৌকিরের পরিচালনায় হালদা চলচ্চিত্রে জেলে বদিউজ্জামাল চরিত্রে অভিনয় করেন।দেশের বৃহত্তম প্রাকৃতিক মৎস্য প্রজনন কেন্দ্র হালদা নদীকে ঘিরে ছবিটি নির্মিত হয়েছে। তার অভিনীত নূর ইমরান মিঠু পরিচালিত কমলা রকেট চলচিত্রটি ঐতিহ্যবাহী গোয়াতে অনুষ্ঠিত ভারতীয় আন্তর্জাতিক চলচিত্র উৎসবের ৪৯তম আয়োজনে প্রদর্শিত হয়।

প্রাপ্তি-২০১৫ সালে তিনি প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে পর্তুগালের আভাঙ্কা চলচ্চিত্র উৎসবে ১৯ তম আসরে “জালালের গল্প” এ অভিনয়ের জন্য এ্যওয়ার্ড পান। ২০০৮ সালে দেয়াল আলমারি, ২০১২ সালে জর্দ্দা জামাল, ২০১৩ সালে সেই রকম চা খোর নাটকে অভিনয়ের জন্য মেরিল প্রথম আলো পুরস্কারের সেরা টিভি অভিনেতার পুরস্কার অর্জন করেন।এছাড়া ২০০৯ সালে হাউজফুল, ২০১১ সালে চাঁদের নিজস্ব কোন আলো নেই,২০১৩ সালে সিকান্দার বক্স এখন বিরাট মডেল, ২০১৪ সালে সেই রকম পানখোর, এবং ২০১৫ সালে সিকান্দার বক্স এখন নিজ গ্রামে নাটকে অভিনয়ের জন্য মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার-এ তারকা জরিপে শ্রেষ্ঠ পুরুষ টিভি অভিনয়শিল্পীর পুরস্কার অর্জন করেন। মোট সম্পদের পরিমান-১৮ মিলিয়ন ডলার।

Check Also

সংবাদ পাঠিকাকে বিয়ে করতে যাচ্ছেন তাহসান

অভিনেতা, গায়ক তাহসান খান ও অভিনেত্রী মিথিলা ভালোবেসে সুখের সংসার সাজিয়েছিলেন। সেই সংসারের ইতি টানেন …

Leave a Reply

Your email address will not be published.