Home / মিডিয়া নিউজ / আমার চেয়ে তার কষ্ট বেশি হয়েছে, থাক সেগুলো আর নাই বা বলি : সাগর

আমার চেয়ে তার কষ্ট বেশি হয়েছে, থাক সেগুলো আর নাই বা বলি : সাগর

বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী মৌসুমী আক্তার সালমা। ব্যক্তিগত জীবনে ২০১৮ সালের

৩১ ডিসেম্বর দুই পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতে আইনজীবী সানাউল্লাহ নূরে সাগরকে বিয়ে

করেন তিনি। বর্তমানে এই দম্পতির ঘরে ‘সাফিয়া নূর’ নামে একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

এদিকে সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি স্ট্যাটাসের মাধ্যমে সালমা নিশ্চিত করেছেন, এরই মধ্যে সাগর লন্ডনের লিংকনস-ইন থেকে ব্যারিস্টারি পড়াশোনা সম্পন্ন করেছেন। ব্যারিস্টারের বউ হয়ে বেশ খুশি এই গায়িকা। আনন্দের খবরটি ফেসবুকে শেয়ার করে স্বামীর উদ্দেশ্যে তিনি লেখেন, ‘আমি আজ সত্যিই অত্যন্ত খুশি ব্যারিস্টার সাহেব।’

এদিকে আজ বুধবার (২৭ অক্টোবর) ফেসবুক স্ট্যাটাসে ব্যারিস্টারি পড়ার অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন সালমার স্বামী সানাউল্লাহ নূরে সাগর। পাঠকদের জন্য তার স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো-

‘লন্ডনের অনারেবল সোসাইটি অফ লিংকনস-ইন থেকে ব্যারিস্টার-এট-ল করার জার্নিটা সুখকর ছিল না। ইনফ্যাক্ট কারো জন্যই সুখকর হয় না। অত্যন্ত পরিশ্রম, মেধা এবং অর্থের কম্বিনেশন লাগে।

পৃথিবীর অন্যতম এই প্রেস্টিজিয়াস ডিগ্রী এশিয়ান অনেক বড় বড় ব্যক্তিগণ অর্জন করেছিলেন। মহাত্মা গান্ধী, মুহাম্মদ আলী জিন্নাহ, পণ্ডিত জওহরলাল নেহেরু, হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী, বাবাসাহেব আম্বেদকর, দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন দাশ, স্যার সৈয়দ আমির আলী, মাইকেল মধুসূদন দত্ত সহ আরও অনেক খ্যাতনামা ব্যক্তিরা এই সম্মান অর্জন করেছিলেন। খোদ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরও বিলাতে দু’বার পাড়ি জমিয়েছিলেন ব্যারিস্টার-এট-ল করতে। যদিও তিনি সাহিত্যের টানে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিলেন।

সেই প্রেস্টিজিয়াস ক্লাবের মেম্বার হওয়ার স্বপ্ন দেখতাম জ্ঞান বুদ্ধি হওয়ার পর থেকেই। আমার চেয়েও বেশি স্বপ্ন দেখতেন আমার বাবা, মা এবং একমাত্র বোন। তাদের একান্ত চাওয়া, সাপোর্ট, অদম্য ইচ্ছা আমাকে অনুপ্রাণিত করতো। বাবা-মায়ের ইচ্ছা পূরণ করতে পেরেছি। এই জন্য মহান রবের প্রতি শোকরিয়া।

একজন ব্যক্তি আমার জীবনে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। সে আমার সহধর্মিণী, আমার বউ, আমার সন্তানের মা মৌসুমী আক্তার সালমা। তার সাপোর্ট, অনুপ্রেরণা, ভালবাসা ছাড়া আমার পক্ষে এই যাত্রা শেষ করা সম্ভব ছিল না। সুদূর ইংল্যান্ড থেকে শুরু করে শেষ অবধি তার সাহায্য পেয়েছি। পেয়েছি উৎসাহ, উদ্দীপনা। আমার মনে হয়েছে জীবনের এই জার্নিতে আমার চেয়ে তার কষ্ট বেশি হয়েছে। নানান বিধ কারণেই তা মনে হয়েছে। সেগুলো আর নাই বা বলি! থাক! কিছু কথা না বলাই থাক! মনের সব কথা বলতে নেই।

আমার এই অর্জনের পেছনে আমার বাবা, মা এবং বউয়ের একান্ত পরিশ্রম, ভালবাসা ও সাপোর্ট জড়িত। স্রেফ তারাই এই ক্রেডিটের মালিক। আর কেউ না।

দুই তরুণ ব্যারিস্টারকে সব সময় পাশে পেয়েছি। তাদের প্রতি বিশেষ ভাবে কৃতজ্ঞ! অন্তরের অন্তস্থল থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা ব্যারিস্টার শাফায়াত এবং ব্যারিস্টার আহসান আরিফ প্রিয়। সাদি টাইপের জন্য অনেক জ্বালাতন করেছি। ভালবাসা ও কৃতজ্ঞতা নিবেন। আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের শোকর গুজার করছি, যিনি সবকিছু দেবার মালিক। এবার মানব সেবার পালা।

বি:দ্র: যারা আমাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন, তাদের প্রতি অশেষ কৃতজ্ঞ। সবাইকে ধন্যবাদ।

এদিকে করোনা সংক্রমনের ফলে বেশকিছু দিন সাংস্কৃতিক অঙ্গন থেকে অনেকটা দূরে সরে গিয়েছিলেন গুণী এই সঙ্গীতশিল্পী। তবে পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হতেই আবারো কাজে নিয়মিত হওয়াট চেষ্টা করছেন তিনি। এই মুহুর্তে স্টেজ প্রোগাম থেকে দূরে থাকলেও নিয়মিতই নতুন গানের ভিডিও প্রকাশ করে যাচ্ছেন সালমা।

Check Also

সংবাদ পাঠিকাকে বিয়ে করতে যাচ্ছেন তাহসান

অভিনেতা, গায়ক তাহসান খান ও অভিনেত্রী মিথিলা ভালোবেসে সুখের সংসার সাজিয়েছিলেন। সেই সংসারের ইতি টানেন …

Leave a Reply

Your email address will not be published.