Home / মিডিয়া নিউজ / ক্যারিয়ারে এ রেকর্ড নেই, তাই কোনো নির্মাতাও বলতে পারবে না:সুজানা

ক্যারিয়ারে এ রেকর্ড নেই, তাই কোনো নির্মাতাও বলতে পারবে না:সুজানা

বাংলার খুবই জনপ্রিয় অভিনেত্রী সুমাইয়া জাফর সুজানা। যিনি ছোট পর্দার পাশাপাশি বড় পর্দায়েও

অভিনয় করে দর্শকদের দারুন জনপ্রিয়তা কুড়িয়ে নিয়েছেন। অভিনয় জগতে তার আবির্ভাব ঘটে

২০০১ সালে সুজানা জাফর মডেল হিসেবে। এর পরপরই অভিনয় করেন বেশকিছু নাটকে।

তবে সম্প্রতি আজ নতুন খবর তিনি জানিয়েছেনহ, ২০২০ সালের এ নতুন বছরে

পরিবারের সবাইকে সাথে নিয়ে বেড়ানোর উদ্দেশেই পারিজমাবেন দুবাই।

গেল বছরের শেষদিন নতুন বছর ও থার্টিফার্স্ট নাইট নিয়ে কথা হয় এ অভিনেত্রীর সঙ্গে। তিনি বলেন, আমি থার্টিফার্স্ট নাইটে কোনো অনুষ্ঠানে অংশ নেইনি। আমার পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গে আলোচনা করে এ রাতের সবার বাজেট আমি বৃদ্ধাশ্রমে দিচ্ছি। ঢাকায় আমার একটি বৃদ্ধাশ্রম আছে। আমার এ উদ্যোগের সঙ্গে পরিবারের অন্যরাও সহমত প্রকাশ করেছেন।

ফলে নতুন বছরটি আমার একটি ভালো কাজ দিয়ে শুরু হলো। সুজানা উত্তরার একটি স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠানে অটিস্টিক শিশুদেরও দেখাশোনা করছেন।

সময় পেলে সেখানে ছুটে যান তিনি। সাম্প্রতিক কালে বছরের বিভিন্ন সময় সুজানাকে দেশের বাইরে অবস্থান করতে দেখা যায়। এ কারণে অনেকেই মনে করছেন তিনি অভিনয় ছেড়ে দিচ্ছেন। এ বিষয়ে মন্তব্য জানতে চাইলে সুজানা বলেন, আমি অভিনয় ছেড়ে দেইনি। অভিনয় ছেড়ে দেয়ার কোনো কারণও নেই। তবে এটি সত্যি আমি দেশের বাইরে থাকি অনেক সময়। কিন্তু সেটি আমার ব্যবসার সূত্রেই থাকা হয়। আমি গেল দুইবছর ব্যবসাতে খুব মনোযোগী এটি সবাই জানেন। কিন্তু এরমধ্যেও গেল বছর একটি নাটক ও মিউজিক ভিডিওতে কাজ করেছি। অভিনয় ছেড়ে দিলেতো কাজ করা হতো না। যদি ভালো গল্প ও চরিত্র পাই তাহলে অবশ্যই আমি কাজ করবো। এছাড়া আমি যেখানেই থাকি কখনোই সিডিউল ফাঁসাই না। আমার ক্যারিয়ারে এ রেকর্ড নেই। কোনো নির্মাতা বলতে পারবেন না আমি সিডিউল ফাঁসিয়েছি। যদি কোনো নির্মাতা আমাকে নিয়ে ভালো কোনো গল্পে কাজ করতে চান তাহলে আমি সিডিউল দিবো। নতুন বছর নিয়ে এ মডেল-অভিনেত্রীর পরিকল্পনা জানতে চাইলে বলেন, নতুন বছরে একটি মিউজিক ভিডিওর কাজ করার কথা হচ্ছে। তবে এ বিষয়ে এখন বলতে চাই না। এছাড়া আবারো বলছি, ভালো গল্প ও চরিত্র পেলে নাটক-টেলিছবিতে অভিনয় করবো। একইসঙ্গে আমার ব্যবসা নিয়েও ব্যস্ত থাকতে চাই। অন্য মডেল-অভিনেত্রীদের তুলনায় সুজানার কাজের সংখ্যা কম কেন? অন্যদের থেকে পিছিয়ে থাকার কোনো কারণ আছে কি? এই প্রশ্নের উত্তরে এ পর্দাকন্যা বলেন, আমার কাজের সংখ্যা কম এটি সত্যি। কিন্তু যে কাজগুলো করেছি তার সবই দর্শকের কাছে প্রশংসিত হয়েছে। অনেক কাজ করার পর যদি দর্শকের কাছে প্রশংসা না পায় তাহলে তা না করাই ভালো বলে মনে করি। তাই আমি ভালো মানের কম কাজের পক্ষে। এখন তো শুনি কেউ কেউ বছরে অনেক নাটকে কাজ করছে। কিন্তু বছর শেষে এসব নাটকের কয়টি দর্শক মনে রাখছে? আবার এখনকার অনেকে ভালো কাজও যে করছে এ বিষয়টিও সত্যি। এ সময়ে নাট্যাঙ্গনের অবস্থা নিয়েও সুজানা আজকের আলাপনে কথা বলেন। তার ভাষ্য, সুবর্ণা মুস্তাফা, বিপাশা হায়াত ও শমী কায়সারসহ অনেকের নাটক দেখে আমরা বড় হয়েছি। এখনো তাদের নাটক দর্শক দেখে। কিন্তু এখন যারা বছরে অনেক নাটকে অভিনয় করছে তাদের কি দর্শক মনে রাখবে? এখন কীভাবে কাজ হচ্ছে এটি কারো অজানা নয়। আমি মনে করি যোগ্য শিল্পীদের নিয়ে কাজ করলে মান যেমন ভালো হয়, তেমনি দর্শকের কাছেও সেটি গ্রহণযোগ্যতা পায়। আমাদের নাটকে প্রতি বছর কত শিল্পী আসছে। তবে বেশির ভাগ নাটকে ঘুরে-ফিরে কিছুসংখ্যক শিল্পীর উপস্থিতিই দেখা যায়। এটি কেন হবে? আমাদের তো শিল্পীর অভাব নেই।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের অন্যতম অভিনেতা ও গায়ক হৃদয় খানের সাবেক স্ত্রী ছিলেন সুমাইয়া জাফর সুজানা। সাংসারিক জীবনে প্রথমে খুব ভালো ভাবেই দিন কাটছিল তাদের। তবে এক পর্যায়ে তাদের দুজনের নানা বিবেদের সৃ্ষ্টি হলে তারা সিদ্ধান্ত নেন বিচ্ছেদের। আর তার পরপরই তাদের মধ্যে বিচ্ছেদ ঘটে। এখন তারা নিজেদের মতো করে সময় পার করছেন।

Check Also

সংবাদ পাঠিকাকে বিয়ে করতে যাচ্ছেন তাহসান

অভিনেতা, গায়ক তাহসান খান ও অভিনেত্রী মিথিলা ভালোবেসে সুখের সংসার সাজিয়েছিলেন। সেই সংসারের ইতি টানেন …

Leave a Reply

Your email address will not be published.