Home / মিডিয়া নিউজ / নিজের মুখে ফারহানা মিলির ব্যক্তিগত কিছু কথা

নিজের মুখে ফারহানা মিলির ব্যক্তিগত কিছু কথা

’মনপুরা’ ছবিতে কাজ করার আগেও ফারহানা মিলি বাংলা টিভি নাটকে অভিনয় করেছেন।

তবে সে সময় তিনি এতোটা জনপ্রিয় ছিলেন না। মনপুরা ছবির কল্যাণে ফারহানা মিলি কে এখন

সবাই এক নামে চিনে। তার মায়াবী চোখ, মিষ্টি হাসি সবার মন ছুয়ে যায়। বিয়ে, স্বামী, সন্তান ও সংসার নিয়ে ব্যস্ত থাকায় বেশ কিছুদিন তিনি অভিনয় জগত থেকে দূরে ছিলেন। পুনরায় তিনি ফিরে এসেছেন অভিনয় জগতে।

পরিবার ও পড়াশোনা:

বাবা: আফতাব উজ্জামান

মাতা: রানা আঞ্জুমান

স্কুল: বাংলা বাজার গভর্মেন্ট গার্লস স্কুল

কলেজ: মহানগর মহিলা কলেজ

বিশ্ববিদ্যালয়: জাহাঙ্গিরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

বিয়ে ও সংসার:

২০১১ সালের ৪ জুন রাশিদুল ইসলাম শাওন এর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন ফারহানা মিলি।

শাওন একটি মোবাইল ফোন প্রতিষ্ঠানের সার্ভিসেস ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কর্মরত। তিনি ২০০৫ সালে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) থেকে কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন করেন।

চার ভাইয়ের মধ্যে শাওন দ্বিতীয়। ২০১২সালের ২৪ নভেম্বর মিলি-শাওনের ঘর আলো করে জন্ম নেন তাদের একমাত্র পুত্রসন্তান।

নিজ মুখে মিলির ব্যক্তিগত কিছু কথা

আমার যত দোষ

আমি খুবই আবেগপ্রবণ। যে কাজ যুক্তি দিয়ে করা উচিত, সেটা হয়তো আমি করি আবেগ দিয়ে। এ জন্য মাঝেমধ্যেই অনেক ভুলও করে থাকি; ফলে কোনো কোনো ক্ষেত্রে আমাকে কাঁদতেও হয়। মজার ব্যাপার হলো, ছোটবেলায় আমার মামা আমাকে ’কান্দুনি’ বলে ডাকতেন। এখনো আমি আমার আবেগ নিয়ন্ত্রণ করতে পারি না, এটা আসলেই আমার একটা দোষ।

হুট করে রেগে যাই আমি। এটা হওয়ার কারণ আমার মনে হয় আমি একটু ভীতু-প্রকৃতির। কান্না ও রাগ মিলেমিশে যখন নিজের প্রতি বিরক্ত হই, ঠিক তখনই হুট করে আরও রেগে যাই। আশার ব্যাপার, ইদানীং আমার রাগ একটু কমে যাচ্ছে।

আমি না অনেক অলস। বই পড়তে খুব ভালোবাসি। তবে যেদিন পড়তে চাই, সেদিন আর পড়া হয় না। সিনেমা দেখতে ইচ্ছা করলে ডিভিডি কিনে নিয়ে আসি, কিন্তু দেখা হয় অনেক পরে। অালস্য ছাড়ার চেষ্টা করেও দূর করতে পারছি না। এটা তো আমার দোষই, তাই না!

আমার যত গুণ

আমার মন কিন্তু অনেক পরিষ্কার। আমি কোনো ধরনের প্যাঁচগোছের মধ্যে নেই। সবাইকে সহজে আপন করে নিতে পারি। এটা আমার একটা গুণ বলেই মনে করি।

আমি সৎ। তবে ইদানীং অভিনয়ের শুটিংয়ে একটু-আধটু ফাঁকিবাজি করি। কিন্তু মঞ্চনাটক করার সময় নো ফাঁকিবাজি। ব্যক্তিগতভাবে অসততাকে আমি ঘৃণা করি।

আমি অনেক যত্নশীল মা। আমার ছেলে রুসলানের জন্য আমি সবকিছু করতে প্রস্তুত। আমি বাসায় ওকে দেখার জন্য কোনো সাহায্যকারী রাখিনি। আমার ছেলের দেখাশোনা আমিই করে থাকি। ভালো মা হতে পারাটাও কিন্তু একটা গুণ!

Check Also

সংবাদ পাঠিকাকে বিয়ে করতে যাচ্ছেন তাহসান

অভিনেতা, গায়ক তাহসান খান ও অভিনেত্রী মিথিলা ভালোবেসে সুখের সংসার সাজিয়েছিলেন। সেই সংসারের ইতি টানেন …

Leave a Reply

Your email address will not be published.